How To Get Pregnant Fast-Pregnancy Tips and Advice -Pregnancy Planning-How



সন্তান নেয়ার আগের প্রস্তুতি গুলো নিয়ে বলেছেন স্বনামধন্য গাইনি ও প্রসূতি বিশেষজ্ঞ ডাঃ রুশদানা রহমান তমা, সহকারী অধ্যাপক, ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। সিরিয়ালের নাম্বার 01790118855 অথবা 01790118866
#PrePregnancyPlanning #Pregnancy #Pregnant #DrRushdanaRahmanToma
—————————————————–
pregnancy,
pregnancy planning,
pregnancy tips,
planning for pregnancy,
pregnant,
healthy pregnancy,
pre pregnancy planning,
pregnancy planning tips,
how to get pregnant,
baby planning,
planning,pregnancy after family planing,
planning pregnancy,
pregnancy (disease or medical condition),
pregnant women,
how to get pregnancy after family planing operation

গর্ভধারণ এবং বাচ্চার জন্ম। সাধারণ মানুষের মধ্যে খুব দ্রুত। রিঅ্যাকশন তৈরি করে। । আনন্দ , ভয় প্রভৃতি নানা রকম প্রতিক্রিয়া দেখতে পাওয়া যায়। । এটি মূলত। নির্ভর করে। কোন সময়। মহিলারা গর্ভবতী হন। তার ওপর।। যে সকল মহিলাদের। ক্যারিয়ার এবং সম্পর্ক গুলি। সুন্দর থাকে তাদের ক্ষেত্রে। শিশুর আগমন। অত্যন্ত আনন্দদায়ক তাদে
র ক্ষেত্রে সোনয় সোহাগা। মধ্য কুড়ির মহিলার সদ্য তাদের কেরিওয়ার শুরু করে। প্রেগনেন্সি হ ল দীর্ঘকালীন দায়িত্ব।এটি নির্ভর করে আপনার উপর আপনি কি চাইছেন । কন্সপশন এবং। গর্ভধারণ তখনই সংঘটিত হয়। যখন একটি চলমান শুক্রাণু একটি ডিম্বাণুকে নিষিক্ত করে।। এইটি করার জন্য শুক্রাণু যোনি থেকে জরায়ু পর্যন্ত I সাঁতারকেটে আসে সার্ভিক্স এর মধ্য দিয়ে। ডিম্বাণু টি ডিম্বাশয় থেকে জরায়ু পর্যন্ত ন চলে আসে ফ্যালোপিয়ান টিউবের মধ্যে দিয়ে। গর্ভধারণ সংঘঠিত হয় সঙ্গমের কয়েক ঘন্টা পর থেকে সাত দিন পর্যন্ত যে কোন সময়। । দ্রুত চলমান শুক্রাণু। ৪৫ মিনিট সময় নেয় ডিম্বাণুর কাছে পৌঁছাতে। একই রাস্তা দিয়ে অপেক্ষাকৃত কম গতিসম্পন্ন শুক্রাণু প্রায় 12 ঘন্টা সময় নেয়। । শুক্রনু টি সাত দিন পর্যন্ত ফ্যালোপিয়ান টিউবে অপেক্ষা করে এবং সেই সময় তার গর্ভসঞ্চার জনিত প্রাথমিক কাজগুলো সম্পন্ন করে। সংগমের সাত দিন পরে যদি ওভ্যুলেশন ঘটে এর ফলে যদি কোনো ডিম্বাণু ডিম্বাশয় থেকে নিঃসৃত হয়, তাহলে শুক্রাণু টির তাকে নিষিক্ত করার সম্ভাবনা থাকে। সেই জন্য আমরা বলতে পারি। নিষেক সম্পন্ন করতে গেলে কতগুলি। শর্ত অবশ্যই পূরণ করতে হবে।

একটি চলমান শুক্রাণু অবশ্যই দরকার
অবশ্যই একটি সক্রিয় ডিম্বাণু প্রয়োজন
তারা অবশ্যই নির্দিষ্ট সময়ে মিলিত হবে
এটা খুব বেশি সম্ভাবনা থাকে যখন শুক্রাণু জরায়ুতে পৌঁছায় এবং সেখানে একটি সক্রিয় ডিম্বানুর সাথে মিলিত হয়
সেটি ভীষণভাবে সম্ভাবনাময় সম্ভবনাময় হয় যখন ডিম্বাণু কি জরায়ু তে থাকে।
ডিম্বাণু টি যখন জরায়ুতে অবস্থান করে তাকে ওভ্যুলিউশন বলে। । এই পরিস্থিতি হলে সবচেয়ে সম্ভাবনাময় সময় গর্ভধারণের জন্য।।

পিরিয়ড হবার আগে আপনি কি গর্ভবতী হতে পারেন৷? এই প্রশ্নের উত্তরের জন্য ঋতুচক্র সম্বন্ধে ধারণা থাকা প্রয়োজন। । আবার গর্ভবতী মহিলার নিজের ঋতুচক্রের সময় কাল জানার সম্বন্ধে ধারণা নিয়েও প্রশ্ন থেকে যায়। এইসব ক্ষেত্রে। ওনার যদি সেই সপ্তাহেই ওভ্যুলিউশন ঘটে থাকে এবং সংগম যদি সেই সপ্তাহে হয়ে থাকে তাহলে গর্ভধারনের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।সাধারণত মহিলাদের গ র্ভধারনের উপযুক্ত সময় হল ওভ্যুলেশনের ৫ দিন আগে থেকে ওভ্যুলিউশন পর্যন্ত। । পিরিয়ড শুরু হওয়ার 7 দিন আগে নিষেক সাধারণত সম্পন্ন হয় না।। তবে যে সকল মহিলার ক ম সমুয়ের জন্য (19 থেকে 22দিনে) ঋতুচক্র সম্পন্ন হয় সে ক্ষেত্রে পিরিয়ডের আগে গর্ভধারন সম্ভব।

যদি আপনি প্রেগনেন্ট হতে চান। এবং আপনার মনে প্রশ্ন আসে যে। ওভ্যুলেশন এর পরে এবং পিরিয়ড এর আগে আপনি কি প্রেগনেন্ট হতে পারেন? এর উত্তর হল হ্যাঁ। যদিও এর সম্ভবনা কম কিন্তু অসম্ভব নয়

পিরিয়ড চলাকালীন আপনার গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা

নিয়মিত পিরিয়ড হয়
আপনার পিরিয়ড পাঁচ থেকে সাত দিনের জন্য চলে
আপনার ঋতুচক্রের মাঝের সময়ের ব্যবধান টি কম হয়(মোটামুটি ২০-২৩দিন)
যদি ঋতুচক্রের ১০থেকে ১২ দিনের মধ্যে আপনার ওভুলেশন ঘটে
এই সবগুলি পরিস্থিতিতেই শুক্রাণুটি যেটি আপনার পিরিয়ড চলাকালীন সঙ্গমের সময় আপনার শরীরে প্রবেশ করেছে সেটি একটি ডিম্বাণুকে নিষিক্ত করে এবং আপনি প্রেগনেন্ট হতে পারেন।

পিরিয়ড শেষ হওয়ার পর আপনার প্রেগনেন্ট হওয়ার সম্ভাবনা
পিরিয়ড শেষ হওয়ার পর সঙ্গমের ফলে প্রেগনেন্ট হওয়ার সুযোগ কতটা থাকে?। এবং পিরিয়ড শেষ হওয়ার তিন দিন পরে কি আমি গর্ভবতী হতে পারি?
পিরিয়ড চলাকালীন কি গর্ভবতী হওয়া সম্ভব? । বলে রাখা ভালো এগুলো সবটাই নির্ভর করে মহিলাটির পিরিয়ডের সময়সীমা, ধারাবাহিকতা, এবং তার ওভুলেশনের সময় এর উপর।

ঋতুস্রাব চলাকালীন আপনি কি প্রেগনেন্ট হতে পারেন?। এবং পিরিয়ড চলাকালীন সঙ্গম হলে কি প্রেগনেনসি রিস্ক থাকতে পারে?

সকল গর্ভধারণের লক্ষণ গুলি অনেক সময় ভুল হয়ে যায়। কখনো কখনো মহিলারা বুঝতে পারেন না সফল গর্ভধারণের লক্ষণ গুলি। অনিয়মিত পিরিয়ড হলে তারা এটা ধারণা করেন না যে তারা গর্ভবতী হয়ে পড়েছেন। এটা বুঝতে বুঝতে অনেক দেরি হয়ে যায়। এর কারণ হিসেবে বলা যায় প্রতিটি গর্ভধারণের ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা লক্ষণ প্রকাশ পায়। কতগুলি সাধারণ লক্ষণ নিচে উল্লেখ করা হলো

আপনি পিরিয়ড মিস করবেন
প্রাতঃকালীন অসুস্থতা
ঘন ঘন প্রস্রাব পাওয়া
স্তনের পরিবর্তন
অ্যারিওলার টিস্যু তে গাড় বর্ণ ধারণ
নাভি থেকে শ্রোণীদেশ পর্যন্ত গাড় বর্ণ ধারণ
একটি বিশেষ খাদ্যের প্রতি অতিরিক্ত আগ্রহ
স্তনের চারিদিকে নীলচে কিংবা গোলাপি বর্ণের গোলাকার দাগ
উপরের সমস্ত লক্ষণ গুলি ভিন্ন ভিন্ন সময়ে দেখতে পাওয়া যায়। কখনো কখনো কোনো রকম লক্ষণ প্রকাশ পায় না। যাই হোক জানার জন্য ওটিসি অথবা ল্যাবরেটরিতে অথবা মেডিকেল পরীক্ষার দ্বারা প্রেগনেন্সি হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত হওয়া প্রয়োজন

View original video here.

Leave a Comment